গৌরনদীতে শিশু কন্যাকে হত্যার অভিযোগে মা গ্রেফতার


আহছান উল্লাহ।
বরিশালের গৌরনদীতে ৪৩দিন বয়সী কন্যা শিশুকে গলা টিপে ও পানিতে ফেলে হত্যার অভিযোগে হিমা আক্তার (২৬) নামের এক গর্ভধারীনি মাকে পুলিশ সোমবার রাতে গ্রেফতার করেছে। হত্যাকান্ডের ঘটনায় অভিযুক্ত মায়ের বিরুদ্ধে শিশুটির পিতা মোঃ দেলোয়ার হোসেন মেলকার বাদী হয়ে গৌরনদী মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করলে পুলিশ সোমবার রাতে তাঁকে গ্রেফতার করে।
গ্রেফতার হওয়া হিমা আক্তারের স্বামী দেলোয়ার হোসেনের বাড়ি উপজেলার কমলাপুর গ্রামে। ওই দম্পতির তিন বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তানও রয়েছে। গত ১৮ ফেব্রæয়ারি দুপুরে উপজেলার বাদুর তলা গ্রামে বাবার বাড়ি বসে হিমা আক্তার তার ৪৩ দিন বয়সী মেয়ে শিশুটিকে গলা টিপে হত্যা করে লাশ বাড়ির পুকুরে ফেলে দেয়। সেখান থেকে স্বজনরা তার লাশ উদ্ধার করে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও গৌরনদী মডেল থানার এসআই মোঃ হারুন অর রশিদ চৌধুরী জানান, শিশুটির নাম খাদিজা ইসলাম রোকাইয়া। গত শুক্রবার দুপুরে হটাৎ তাকে পাওয়া যাচ্ছে না বলে শিশুটির মা চিৎকার করে বাড়ির লোকজন জড়ো করে। বাড়ির লোকজন ও পরিবারের সদস্যরা মিলে তখন খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বাড়ির পাশের পুকুরে শিশুটির লাশ ভাসতে দেখে উদ্ধার করে। এ ঘটনার পর ওইদিন রাতে শিশুটির পিতা মোঃ দেলোয়ার হোসেন তার স্ত্রী হিমা আক্তারের নামে গৌরনদী মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তখন শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।
গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোঃ আফজাল হোসেন জানান, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হিমা আক্তার তার কন্যাশিশুকে গলা টিপে ও পানিতে ফেলে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। এর পর ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়ার জন্য পুলিশ মঙ্গলবার বিকেলে তাকে বরিশাল আদালতে সোপর্দ করলে আদালতেও হত্যার কথা স্বীকার করেছেন।