আলোচিত টরকি বন্দরের গনডাকাতি গৌরনদীতে রিমান্ডের আসামির স্বীকারোক্তি অস্ত্র উদ্ধার


মো.আহছান উল্লাহ,গৗরনদী।
রিমান্ডে থাকা আসামীদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক অভিযান চালিয়ে বরিশালের গৌরনদী মডেল থানা পুলিশ শনিবার রাতে উপজেলার টরকী বন্দরে গণডাকাতিতে ব্যবহৃত ১টি পাইপগান ও নানা প্রকার দেশীয় অস্ত্র¿ উদ্ধার করেছে।
রোববার দুপুরে গৌরনদী মডেল থানা কমপ্লেক্স ভবনে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে গৌরনদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আব্দুর রব হাওলাদার এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এ সময় তিনি জানান, গত ২মাস পূর্বে উপজেলার টরকী বন্দরে গণডাকাতি সংঘটিত হয়। ওই ডাকাতির ঘটনার পর বরিশাল জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় তদারকী কর্মকর্তা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মোঃ শাহজাহান হোসেনের নেতৃত্বে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গৌরনদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আফজাল হোসেনসহ ১০জন অফিসার ফোর্সদের সমন্বয়ে একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়। ওই ডাকাতির ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ এ যাবত মোট ১০জনকে গ্রেফতার করেছে। ডাকাতির সাথে যুক্ত ও পুলিশ রিমান্ডে থাকা আসামি বরিশালের মুলাদী উপজেলার পুর্বতরকা গ্রামের মোতালেব হাওলাদারের ছেলে সোহরাব হাওলাদার(৫০)কে পুলিশের ওই বিশেষ অভিযান পরিচালকারী দল ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে রিমান্ডে থাকা আসামি সোহরাব হাওলাদারের দেয়া তথ্য এবং তার দেখানো মতে টরকী বন্দরের নৈশ প্রহরী ও নিরপেক্ষ স্বাক্ষীদের উপস্থিতিতে শনিবার রাতে টরকী বন্দর জামাল মিয়ার তেলের মিলের প‚র্বপাশে থাকা গন-লেট্রিনের দক্ষিণ পাশের ঘন জঙ্গল থেকে ১টি দেশীয় তৈরী পাইপগান, ১টি চাইনিজ কুড়াল, ৪টি রাম দা পুলিশ উদ্ধার করে। প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সময় উপস্থিত ছিলেন গৌরনদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আফজাল হোসেন, ওসি (তদন্ত) মোঃ হেলাল উদ্দিনসহ অন্যান্য অফিসারবৃন্দ। এ ঘটনায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গৌরনদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আফজাল হোসেন বাদি হয়ে অস্ত্র আইনে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
উল্লেখ গত ৭ আগষ্ট রাতে ২৫/৩০ জনের সশস্ত্র মুখোশধারী ডাকাত দল টরর্কী বন্দরের রায় পট্রিতে গলির মধ্যে অর্ধশতাধীক মানুষকে জিম্মী করে ফিল্মী স্টাইলে ১২টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লুটপাট চালায়। ডাকাতরা নগদ টাকা ও সিকারেট লুট করে নিয়ে যায়।