Published On: Mon, Aug 14th, 2017

গৌরনদীতে ভূমি দস্যুতার অভিযোগ

Share This
Tags

গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি
বরিশালের গৌরনদী উপজেলার উত্তর পালরদী গ্রামের ভূমি দস্যুখ্যাত নাসির মিয়া দক্ষিন পালরদী গ্রামের জেএল নং ৭১- ১৪৯ দাগের ১২ শতাংশ জমি অবৈধভাবে জবরদখল করে বিবাদীদের মিথ্যা মামলাসহ বিভিন্নভাবে হয়রানী করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
ভূক্তভোগী মোঃ হানিফ মিয়া লিখিত অভিযোগে জানান, ভূমিদস্যু নাসির মিয়া দীর্ঘদিন নানা অপকর্মের কারনে দেশ ত্যাগ করে সাম্প্রতিকত সময়ে দেশে ফিরে স্থানীয় প্রভাবশালী কুচক্রী মহলের সহাতায় আমার চাচা আঃ রব মিয়ার ক্রয়কৃত সম্পত্তি ভূয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে জোর করে দখল করে পাকা ভবন নির্মানের পায়তারা চালাচ্ছে। আমরা উল্লেখিত ব্যাপারে বাধা প্রদান করিলে আমাদের বিভিন্ন রকম হুমকি ধামকি এমনকি মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। তা ছাড়া স্থানীয় সন্ত্রাসী দিয়ে ও আমাদের বিভিন্ন রকম হুমকি ধামকি দিচ্ছে।
উল্লেখ্য আমার চাচা আঃ রব মিয়া শারিরিকভাবে অসুস্থ থাকায় তার সমুদয় সম্পত্তি দেখাশুনা ক্রয় বিক্রয় করার ক্ষমতা আমাকে আদালতের মাধ্যমে প্রদান করেছেন সে মতে আমি ওই সম্পত্তি উদ্ধারের জন্য চেষ্টা চালালে ভুমিদস্যু নাসির মিয়া তার সন্ত্রাসী নিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন রকম ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। ১৯৬৯ সালে দক্ষিন পালরদী নিবাসী নিশি কান্ত চক্রবর্তীর পূত্রদ্বয়ের নিকট হইতে উক্ত সম্পত্তি গৌরনদী উপজেলার দক্ষিন পালরদী গ্রামের প্রফেসর অজিত চাকলাদারের কাছে বিক্রি করেন এবং তিনি ওই সম্পত্তি ১৯৭২ সালে তার নিজ নামে জমাখারিজ করেন এবং পরবর্তিতে দিয়াশুর গ্রামের মোসলেম উদ্দিন খানের কাছে বিক্রয় করেন এবং তার কাছ থেকে আমার চাচা আঃ রব মিয়া ক্রয় করে ১৯৮০-৮১ অর্থবছরে নিজ নামে জমাখারিজ করে সে জমির উপর বিভিন্ন কৃষি কাজ করে আমরা ভোগ দখল করে আসছি। ২০০২ সালে উক্ত সম্পত্তি নাসির মিয়া অন্য রের্কডীয় মালিকের কাছ থেকে আংশিক জমি ক্রয় করে যাহার কোন ভোগদখল ছিল না সে সময় সে (নাসির মিয়া) রাজনৈতিক পেশীশক্তি ব্যবহার করে আমার চাচার রোপন কৃত গাছপালা কর্তন করে এমনকি পানির টিউবয়েলটি পর্যন্ত উপড়িয়ে ফেলে অবৈধ ভাবে জবর দখল করে নেয়। তৎকালীন সময়ের সংসদ সদস্য এম, জহির উদ্দিন স্বপনের কাছে এর প্রতিকার চাহিয়া কোন লাভ হয়নি। কেননা নাসির মিয়া ছিল বিএনপি ঘরনার লোক যে কারনে আমরা কোন সুবিচার পাইনি পরবর্তীতে আমরা আইনের মাধ্যমে ২০০৮ সালে অবৈধ দখলদারদের কবল থেকে আমাদের সম্পত্তি উদ্ধার করে ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে আমরা জমা খারিজ করে সেখানে বিভিন্ন কৃষি কাজ করে আমরা ভোগ দখল করে আসছি। সাম্প্রতিককালে স্থানীয় প্রভাবশালী কুচক্রী মহলের সহায়তায় ভুমিদস্যু নাসির মিয়া স্থানীয় সন্ত্রাসী ও পুলিশ প্রশাসনকে আর্থিক সুবিধা প্রদান করে আমার চাচার সম্পত্তি অবৈধ ভাবে দখল করে সেখানে পাকাভবন নির্মানের পায়তারা করছে।
আমরা উক্ত ভূমিদস্যু নাসির মিয়ার ষড়যন্ত্রের হাত থেকে রেহাই পেতে এবং আমাদের সম্পত্তি অবৈধ দখল না করতে পারে তার জন্য উর্ধ্বতন প্রশাসন ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের কাছে আবেদন জানাচ্ছি।

About the Author

-

%d bloggers like this: