Published On: Thu, Dec 14th, 2017

বন্দোবস্তো পেলেও একযুগে দখল মেলেনি সরকারী জমির

Share This
Tags

গৌরনদী (বরিশাল) সংবাদদাতাঃ
একযুগ আগে সরকারী খাস জমির বন্দোবস্তো পেলেও দখল বুঁঝে না পেয়ে উল্টোভাবে বারে বারে হামলা – মামলার শিকার হচ্ছেন গৌরনদীর চরদিয়াশুর গ্রামের অসহায় লালচাঁন হাওলাদার ও তার পরিবার। জানাগেছে,আজ (বুধবার) সকালে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে লালচানের ( বন্দোবস্তো প্রদানকৃত) জমিতে মাটি কাটা শুধু করে প্রতিপক্ষ কালাম প্যাদা ও তার কতিপয় সহযোগী। এ সময় বাধা দিলে গিয়ে কালাম প্যাদার সহযোগী আলামিন মৃধা,সোহাগ প্যাদাসহ ৫/৬ জন কর্তৃক হামলার শিকার হয়েছেন লালচাঁনের স্ত্রী পারভীন বেগম (৪০)। হামলকারীরা পারভীনকে পিটিয়ে আহত করে। এ ঘটনায় দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ পেয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য নিবাহী অফিসার গৌরনদী মডেল থানার ওসিকে নির্দেশ দেন।
অভিযোগে জানাগেছে, একটি ভূমিহীন ও দুঃস্থ পরিবার হিসেবে গৌরনদীর চর দিয়াশুর গ্রামের বাদাম বিক্রেতা লালচাঁন হাওলাদার ও তার স্ত্রী পারভীন বেগমের নামে ২০০৫ সালে চরদিয়াশুর মৌজায় এসএ ২২৬ দাগে ৭ শতাংশ সরকারী খাস জমি বন্দোবস্তো প্রদান করেন বরিশালের জেলা প্রশাসক। বর্তমান হাল জরিপে (বিএস রেকর্ড) লালচান ও তার স্ত্রীর নামে ওই জমি রেকর্ড হয়। কিন্তু সরকারীভাবে ওই জমি বুঝিয়ে না দেয়ার কারণে ওই জমি দখল করে নেয় প্রতিবেশী কালাম প্যাদা। এর পর সে লালচাঁন ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা দায়ের করে তাদের হয়রানী করছে।
সম্প্রতি লালচাঁন গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুমা আক্তারের কাছে জমির দখল পাওয়ার জন্য আবেদন করেন। এরপর নির্বাহী অফিসার লালচানের জমি মেপে বুঝিয়ে দেয়ার জন্য ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মিজানুর রহমানকে নির্দেশ দেন। জানাগেছে,নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশ পেয়ে গত ৫ ডিসেম্বর সার্ভেয়ার ওই জমি মেপে সনাক্ত করেন। কিন্তু জমি নিয়ে মামলা থাকার কারণে লালচাঁনকে জমির দখল বুঝিয়ে দিতে ব্যর্থ হন।
লালচাঁন হাওলাদার ও তার স্ত্রী পারভীন জানান,কালাম প্যাদা ও তার সহযোগীরা তার ওপর একাধিকবার হামলা করেছ্ ে। এছাড়া সে একের পর এক তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের দিয়ে তাদেরকে হয়রানী করছে বলে তারা অভিযোগ করেন। জমির দখল পেতে তারা প্রশাসনের সহযোগিতা চান।

About the Author

-

%d bloggers like this: