Published On: Mon, Jul 31st, 2017

বিশ্বয়কর ফল ননি

Share This
Tags

এস এম রহমান হান্নান
বাংলাদেশের পরিত্যাক্ত লতাপাতা আর আবর্জনা হতে পারে দেশের সোনা। কথাটি এখন সর্বজন স্বীকৃত কেননা এক সময় যা আমাদের দেশে ফেলনা, পরিত্যাক্ত ছিল পরবর্তিতে তা মুল্যবান রপ্তানি পন্যে পরিনত হয়েছে। প্রয়োজন শুধু এ সব পন্য চিনে নেয়া ও তার ব্যাবহার সম্পর্কে জানা। সেরকমই একটি অর্থকরী কৃষি পন্য ননি ফল। অবাক করার মতো বহুমূখি ব্যাবহার যোগ্য এ ফলটি। আমাদের দেশের আবহাওয়ায় পরিকল্পিত চাষ করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা আয় করা সম্ভব। বিষেজ্ঞদের মতে ননি ফল মানুষের রোগের উপকারই করে না ননি ফল গাছের বাগান যে এলাকায় থাকবে সে এলাকায় সংক্রমন রোগ ছড়ায় না । বাংলাদেশের প্রায় সাত লাখ সাস্থ্যসচেতন পরিবার নিয়মিত ননি ফলের জুষ ব্যাবহার করেন । যাহা মালয়েশিয়া ও ভারত থেকে উচ্চ মূল্যে আমদানি করা হয়। শত সম্ভাবনা থাকা সত্যেও আমরা প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। কম খরছে পরিবারের সকলের রোগ প্রতিরোধক একটি প্রাকৃতিক খাবার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে দেশের সাধারন মানুষ।
ননিফল কি ঃবৈজ্ঞানিক নাম মরিন্ডাসিট্রিফলিয়া, এর চাষের জন্য বাংলাদেশের আবহাওয়া খুবই অনুকুল। ননিফলের রসে আছে ভিটামিন এ,সি,ই,বি,বি ২,বি ৬,বি ১২,ক্যালসিয়াম,আয়রন,নিয়াসিন,ফলিক অ্যাসিড,প্যান্টোথেনিক অ্যাসিড,ফসফরাস,ম্যাগ্নেসিয়াম,জিঙ্ক,কপার এবং অন্যান্য মিনারেলস যেমন ক্রোমনিয়াম,ম্যাঙ্গানিজ,মলিবডেনাম,সোডিয়াম,পটাসিয়াম,কার্বোহাইড্রেটস ও ১৫০ টির বেশী পুষ্টিগুন সম্পন্ন। এবং প্রাক ক্যান্সার ও টিউমার বৃদ্ধিকেও দমন করে। সারা বিশ্বে বর্তমানে ৪০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ননি ফল নিয়ে ব্যাপক গবেষণা চলছে ।
হাওয়াই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবীন গবেষক ডঃ রালফ এম হেনেইনিকের মতে ননি ফলের রসে প্রাকৃতিক এ্যালকালয়েড জেরোনিনের পাশাপাশি এক ধরনে রাসায়নিক উপাদান রয়েছে যা,বিপাকতন্ত্রে জেরোনিনে রুপান্তরিত হয়। তিনি আরো জানান একটি পরিপক্ষ ননি ফলের রসে এসব গুন বিদ্যমান ননি ফলের রসকে কোন কৃত্রিম সংরক্ষন ছাড়াই দির্ঘদিন ব্যাবহার করা যায়। তার মতে ননি ফলের রসে উচ্চ রক্তচাপ কমায়,শারীরিক শক্তি বৃদ্ধি করে, প্রদাহ ও হিষ্টামিন প্রতিরোধী,ব্যাথা ও জ্বালা কমায়, এন্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপার্টি যা পরিপাক প্রণালী ও হৃদ ক্ষত প্রতিরোধ করে এবং প্রাক ক্যান্সার টিউমার বৃদ্ধিকে দমন করে।
উদ্ভিদ বিদ্যায় পারদর্শী বিজ্ঞানী ডঃ ইসাবেল এলবার্ট এর মতে ননি ফলের রস ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে,উচ্চ রক্তচাপে এবং ক্যান্সাওে বিশেষ উপকারি তার মতে ননি ফলের রসে রয়েছে ফাইটোনিয়েন্টস খাদ্যযাত উপশমকারী বৈশিষ্ট্য যে কারনে রক্তচাপ কমাতে সাহায্য কওে এবং স্কপলেটিন ফাইটোনিউট্রেয়েন্ট উপাদান পূর্বে সঙ্কুচিত রক্তনালীকে সচল করে। ননি ফলের রস মানব শরীরের অস্বাভাবিকভাবে কার্যকৃত কোষকলাকে প্রয়োজনীয় নিশ্চিত প্রভাব বিস্তার করে যা মানুষকে সুস্থ অনুভব করায়। তিনি আরো জানান ননি ফলের রসে এক ধরনের অপরিবর্তনশীল যৌগ রয়েছে যা কান্সার উৎপন্নকারী কোষকে প্রতিরোধ করে এবং বাড়তে দেয় না। এছাড়াও ননি ফলের রসে ইনোসিটল পাওয়া গেছে। সাম্প্রতিক সমীক্ষায় দেখা গেছে যে ইনোসিটলে পুর্বাভাষকারী কোষের কার্যক্রম ডিপ্রেশনের চিকিৎসা হিসেবে উপকারী ভূমিকা রাখে। ইনোসিটল এক ধরনের প্রাকৃতিক শর্করা সুরাসর/এলকোহল যা ডায়াবেটিক নিয়ন্ত্রনে নিশ্চিত ভূমিকা রাখে।
বিশ্বয়কর এ ননি ফলের গুনের কথা লিখে শেষ করা যাবেনা । ননি ফল যাহা দুই হাজারেরও বেশী বছর ধরে প্রাচীন পলিনিশিয়া,চিন,এশিয়া,অষ্ট্রেলিয়া,ভারতের আদিবাসীদের মধ্যে অসাধারন ক্ষমতা সম্পন্ন ঔষধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। বর্তমান এ আধুনিকতার যুগেও প্রচুর ঔষধীগুন সম্পন্ন এই ফলের রস মানব শরীরের বিভিন্ন ধরনের উন্নতির প্রমান দেখিয়েছে।
মালয়েশিয়ার বিশ্ব বিখ্যাত হারবাল কোম্পানী ডিএক্সএন এর বাংলাদেশের সিণিয়র কর্মকর্তা ফজলুর রহমান বাবুল জানান অসাধারন এই প্রাকৃতিক খাবার ননি ফলের রস আমাদের কোম্পানী মরিনঝি জুস নামে বাজারজাত করছে। আমাদের দেশে প্রাকৃতিক এ বেভারেজটি দিনদিন জনপ্রিয়তা লাভ করছে। তবে আমাদের দেশে যেহেতু আমদানী নির্ভর সে কারনে দাম একটু বেশী পড়ছে। সরকারি কিছু বিধিবিধানও এর জন্য দায়ী। গ্রাম প্রধান আমাদের এ বাংলাদেশ। এ দেশের মাটি আর মানুষ গভীর বন্ধনে বাঁধা। মাটি আমাদের বিনামুল্যে অনেক উপহার দিয়ে থাকে। কৃষি বিষেশজ্ঞদের কাছে আমাদের একটি আবেদন যাতে তারা খাদ্য উৎপাদনের পাশাপাশি বাংলার ভেষজ সম্পদকে কৃষির উপখাত হিসেবে চিহ্নিত করে এর প্রতি গবেষনামুলক দৃষ্টি দেন।

About the Author

-

%d bloggers like this: