Published On: Fri, Nov 17th, 2017

শমশেরনগর ইসলামিক মিশনে চিকিৎসা সেবা বঞ্চিত রোগীরা

Share This
Tags

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ব্যস্ত জনপদ শমশেরনগরে সরকারি চিকিৎসা সেবার একমাত্র প্রতিষ্ঠান শমশেরনগর ইসলামিক মিশনে চিকিৎসা বঞ্চিত রোগীরা চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। রোহিঙ্গাদের চিকিৎসা সেবায় মেডিকেল টিমের চিকিৎসক হিসাবে শমশেরনগর ইসলামিক মিশনের একমাত্র চিকিৎসককে স্থানান্তর করায় আকস্মিকভাবে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়। ফলে শত শত রোগী সরকারি চিকিৎসা সুবিধা বঞ্চিত হয়ে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছন।
শমশেরনগর ইসলামিক মিশনে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের অভিযোগে জানা যায়, সরকারি চিকিৎসা সেবার একমাত্র প্রতিষ্ঠান শমশেরনগর ইসলামিক মিশনের চিকিৎসক মোহেব্বুল হককে রোহিঙ্গাদের চিকিৎসা সেবায় টেকনাফে চলে যাওয়ায় গত ১২ নভেম্বর থেকে এখানে আর কোন চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে না। প্রতিদিন শমশেরনগর, পতনঊষার, আলীনগর, কমলগঞ্জ, কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর, শরীফপুর ইউনিয়ন সহ প্রায় দশটি ইউনিয়ন থেকে শত শত শিশু, নারী ও বয়োবৃদ্ধ রোগীরা মিশনে এসে চিকিৎসা সেবা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছেন। এই প্রতিষ্ঠানে বিকল্প কোন চিকিৎসক না থাকায় সরকারি চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন রোগীরা।
শমশেরনগর ইউনিয়নের লীনা সুলতানা, আফিয়া বেগম, আব্দুল বাছিত, পতনঊষার ইউনিয়নের পারুল বেগম, জাহেরা বেগম, তানিয়া বেগম, হাজীপুর ইউনিয়নের ছমছুন বিবি অভিযোগ করে বলেন, আমরা সবসময় শমশেরনগর ইসলামিক মিশন থেকে চিকিৎসা গ্রহণ করি। গত কয়েকদিন ধরে ডাক্তার না থাকায় মিশনে কোন চিকিৎসা সেবা পাওয়া যাচ্ছে না। সরকারি এই প্রতিষ্ঠানে ১০ টাকা ফি দিয়ে বিনামূল্যে মান সম্পত চিকিৎসা পাওয়া যেত। বর্তমানে ডাক্তার না থাকায় চিকিৎসা গ্রহনে আমাদের চরম ভোগান্তি দেখা দিয়েছে। তারা আরও বলেন, বর্তমানে আবহাওয়া পরিবর্তন জনিত কারনে সর্দি, কাশি, জ্বর, নিউমোনিয়াসহ নানা রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে এই মিশনে দ্রুত একজন চিকিৎসক প্রদান করা হলে প্রত্যন্ত এলাকার হতদরিদ্র লোকদের প্রাথমিক চিকিৎসা সুবিধার লাঘব হবে।
স্থানীয় সচেতন মহল বলেন, শমশেরনগর এলাকাটি একটি ব্যস্ত জনপদ থাকায় এখানকার মানুষের চিকিৎসা সেবা গ্রহণের একমাত্র প্রতিষ্ঠান ইসলামিক মিশন। শমশেরনগরে আর কোন ভালো চিকিৎসক না থাকায় প্রাইভেট রোগী দেখানোও সম্ভব হচ্ছে না। এ ব্যাপারে শমশেরনগর ইসলামিক মিশনের সিনিয়র মেডিকেল অফিসার ডা. মোহেব্বুল হক এর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে টেকনাফে রোহিঙ্গাদের চিকিৎসা সেবায় বর্তমানে মেডিকেল টিমে কাজ করছি।

About the Author

-

%d bloggers like this: