Published On: Fri, Oct 20th, 2017

কান্দিগাঁও গ্রামে শোকের মাতম

Share This
Tags

জয়নাল আবেদীন, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
কুয়েতের সালমিয়াতে এসি বিস্ফোরণে নিহত মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের কান্দিগাঁও গ্রামের জুনেদ আহমেদের স্ত্রী রোকেয়া বেগমসহ তার দুই ছেলে ও দুই মেয়ের লাশ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় লাশবহনকারী কুয়েত এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট ঢাকার হযরত শাহজালাল (রা.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌছে। বিমানবন্দরে উপস্থিত হয়ে মরদেহ গ্রহণ করেন সাবেক চিফ হুইপ ও কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল এলাকার সংসদ সদস্য আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ মো: আব্দুস শহীদ এমপি। লাশ গ্রহনের সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ মোঃ শাহাব উদ্দীন এমপি, বাংলাদেশ প্রবাশী ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের পরিচালক (অর্থ) মোঃ শফিকুর রহমান, সহকারী পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ। ১৯ অক্টোবর সন্ধ্যায় কমলগঞ্জে গ্রামের বাড়িতে এসে পৌঁছলে শোকের ছায়া নেমে আসে। শুরু হয় কান্নার রুল।
বিমানবন্দর আনুষ্ঠানিকতা শেষে সড়ক পথে সকাল ১১টায় মরদেহ নিয়ে কমলগঞ্জের কান্দিগাঁও গ্রামের বাড়ির রওয়ানা দিয়ে সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় গ্রামের বাড়ি কান্দিগাঁও গ্রামে মরদেহ গ্রহণ করেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মো: তোফায়েল ইসলাম, কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যপক রফিকুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, কমলগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো: আব্দুল হান্নান ও ইউপি সদস্য সুন্দর আলী প্রমুখ। জেলা প্রশাসক, উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার কুয়েত প্রবাসী জুনেদ আহমদকে শান্তনা দেন।
এদিকে মরদেহ গ্রামের বাড়ি এসে পৌঁছলে নিহতদের স্বজনদের মধ্যে কান্নার রোল পড়ে। কুয়েত প্রবাসী জুনেদ আহমদ ও তাঁর স্বজন ও এলাকাবাসীর আহাজারিতে কান্দিগাঁও গ্রামে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। মরদেহ দেখতে মৌলভীবাজারের বিভিন্ন এলাকা হতে হাজারো মানুষ কান্দিগাঁও গ্রামের বাড়িতে ভিড় করেছেন। শেষবারের মত স্বজনরা ও এলাকাবাসী মরদেহ দেখে নিহতের জানাযার নামাজ রাত সাড়ে ৮টায় কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছ বাজার সংলগ্ন সফাত আলী সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা মাঠে অনুষ্টিত হয়। এরপর নিজ গ্রাম্য কবরস্থানে পাশাপাশি পাঁচটি কবরে কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়েছে।
শিশুসহ পাঁচজনের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জাতীয় সংসদের হুইপ মৌলভীবাজার-১ আসনের সাংসদ মো. শাহাবউদ্দীন ও সাবেক চিফ হুইপ মৌলভীবাজার-৪ আসনের সাংসদ উপাধ্যক্ষ মো: আব্দুস শহীদ, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ সদস্য ও কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক রফিকুর রহমান ও কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কমলগঞ্জ ইউনিট, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাবের সকল সাংবাদিকবৃন্দ।

উলে¬খ্য, সোমবার (১৬ অক্টোবর) বাংলাদেশ সময় বিকাল ৫টায় কুয়েতের সালমিয়াত এলাকায় ভাড়া বাসায় এসি বিস্ফোরণে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারা যান জুনায়েদ মিয়ার স্ত্রী-সন্তানরা। নিহতরা হলেন- জুনায়েদ মিয়ার স্ত্রী রোকেয়া বেগম (৩৪), বড় মেয়ে জামিলা আহমদ (১৫), বড় ছেলে ফাহাদ আহমদ (১২), ছোট ছেলে ইমাদ আহমদ (৯) ও ছোট মেয়ে নাবিলা আহমেদ (৫)।

About the Author

-

%d bloggers like this: