Published On: Mon, Jun 22nd, 2020

আগৈলঝাড়ায় করোনা সন্দেহে রাস্তায় ফেলে যাওয়া অসুস্থ বৃদ্ধাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ

Share This
Tags


আঞ্চলিক প্রতিনিধি,
বৈশ্বিক মহামারি করোনা কারণে মানবতা আজ ভূলুন্ঠিত! করোনা সন্দেহে অসুস্থ আপন বৃদ্ধা পিসিকে মহাসড়কের পাশে ফেলে রেখে সটকে পরেছে ভাইর ছেলে। উৎসুক জনতা সড়কের পাশে পড়ে থাকা বৃদ্ধাকে দেখতে ভীর জমালেও মনবতা বিবেক জাগ্রত না হওয়ায় চার ঘন্টা পর সংবাদকমীদের তৎপরতায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করেছে ওই বৃদ্ধাকে। বর্তমানে অসহায় ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ।
হৃদয় বিদারক এই ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার বিকেলে বরিশালের আগৈলঝাড়া-ঢাকা-পয়সারহাট আঞ্চলিক মহাসড়কের ফুল্লশ্রী বাইপাস বাস স্ট্যাান্ডে।
মহাসড়কের পাশে পড়ে থাকা ৭০ বছরের অসুস্থ বৃদ্ধা দীপু বালা এই প্রতিনিধিকে জানান, তার স্বামী ও বাবার বাড়ি আগৈলঝাড়া উপজেলার বাগধা ইউনিয়নের আস্কর গ্রামে। স্বামী অশ্বিনী বালা ৩-৪ বছর আগে মারা যান। দাম্পত্য জীবনেতাদের কোন সন্তান নেই। মানুষের বাসায় ঝি’য়ের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলেন তিনি। বর্তমানে তিনি বরিশাল কাঠপট্টি রোডের ধীরেণ সিকদারের বাসায় কাজ করতেন। ওই বাসায় কর্মরত অবস্থায় ৪-৫দিন আগে শরীরে দুর্বলতা ও বার্ধক্য জনিত কারণে হঠাৎ অসুস্থ হন তিনি। তার মালিক ধীরেণ সিকদার স্থানীয়ভাকে ডাক্তার দেখিয়ে অষুধ কিনে দেন। খবর দেয়া হয় তার গ্রামের বাড়িতে।
আস্কর গ্রামের বাড়ি থেকে তার ভাই মনোরঞ্জন সাহার ছেলে মিথুন সাহা বরিশাল থেকে সোমবার বৃদ্ধা পিসিকে বাড়ি আনতে গিয়ে গন্তব্য পয়সারহাট বাস স্ট্যান্ডে না নেমে পথিমধ্যে আগৈলঝাড়া বাইপাস সড়কের বাস স্যান্ডে নামেন তারা। বয়সের ভারে নূব্দ হওয়া ও দুর্বলতার কারণে চলাফের করতে না পারা পিসি দীপু বালাকে সাড়ে বারোটার দিকে সড়কের পাশে রেখে সটকে পরেন ভাইপো মিথুন। নড়া চড়া করতে না পেরে অসহায় অসুস্থ বৃদ্ধা সড়কের উপরই শুয়ে পড়েন বাধ্য হয়ে। সাড়ে বারোটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত সময় গড়িয়ে গেলেও আর দেখা মেলেনি ভাইপো মিথুনের। বৃষ্টি আসন্ন দেখে স্থানীয় সাংবাদিকেরা বৃদ্ধা দীপু বালাকে সড়কের একটি হোটেলের বারান্দায় নিয়ে বসান।
এক পর্যায়ে স্থানীয় সংবাদ কর্মীরা বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানাকে অবহিত করলে উপজেলা প্রশাসনের কোন লোক এগিয়ে না আসলেও ওসির নির্দেশে পুলিশের এসআই শাহজাহান তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে গিয়ে অসুস্থ বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান।
খবর পেয়ে বৃস্টি উপেক্ষা করে হাসপাতালে ছুটে যান থানা অফিসার ইন চার্জ মো. আফজাল হোসেন। হাসপাতালে অসুস্থ বৃদ্ধার সকল প্রকার চিকিৎসা, খাদ্য সহায়তাসহ আনুসাঙ্গিক সুবিধা প্রদানের কথা জানান ওসি মো. আফজাল হোসেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বখতিয়ার আল মামুন জানান, বৃদ্ধাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, প্রাথমিকভাবে বৃদ্ধার করোনা উপসর্গ নেই বলে মনে হলেও চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রয়োজনে তার করোনা পরীক্ষা করানো হবে।
ওসি মো. আফজাল হোসেন বলেন, করোনা মোকা বেলায় মানুষের বিবেক জাগ্রহ হওয়া দরকার। মানবিকতা বিবর্জিত হলে মাহামারী সংকট আরও ঘনিভুত হবে। বৃদ্ধার ভাইপোর অবহেলার বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানান তিনি।

About the Author

-

%d bloggers like this: