Published On: Sun, Oct 15th, 2017

উজিরপুরে যুবলীগ নেতার মৃত্যু নিয়ে ধু¤্রজাল

Share This
Tags

খোন্দকার মনিরুজ্জামান মনির বিশেষ প্রতিনিধি
শনিবার রাতে নিহত বরিশালের উজিরপুরের এক যুবলীগ নেতার মৃত্যুকে কেন্দ্র করে এলাকার সর্বত্র ধু¤্রজালের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি কি দুর্ঘটনায় মৃত্যু, নাকি তাকে খুন করা হয়েছে ? এ নিয়ে পুলিশ ও এলাকাবাসী রয়েছে বিভ্রন্তিতে। নিহতের পরিবারের সদস্যরা দাবি করছে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড, আর পুলিশ বলছে, ময়না তদন্তের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে এটি হত্যাকান্ড, নাকি দুর্ঘটনা। তরে তাদের ধারনা, সড়ক দুর্ঘটনায়ই ওই যুবলীগ নেতার মৃত্যু হয়েছে।
জানাগেছে, শনিবার রাতে একটি মোটরসাইকেলের ওপর উপুর হয়ে পড়ে থাকা অবস্থায় বরিশালের উজিরপুর উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক টিটু হাওলাদার (৩৫) এর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে পুলিশ জসিম হাওলাদার (৩৪) নামে ওই মোটর সাইকেলের আরোহী এক যুবককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানাগেছে, যুবলীগ নেতা টিটু হাওলাদার শনিবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার গড়িয়া গাভা নতুট হাটস্থ নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে জসিম হাওলাদার (৩৪) নামে এক সহযোগী যুবককে সাথে নিয়ে স্থানীয় মাহাবুব গোমস্তার মোটর সাইকেলযোগে চৌমুহনী বাজারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। পথিমধ্যে কাওসার সিকদার নামে তার অপর এক সহোযোগী চৌমুহনী বাজার সংলগ্ন সড়কে মোটর সাইকেলের উপর উপুর হওয়া অবস্থায় টিটু হাওলাদারের রক্তাক্ত মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে ডাক-চিৎকার দেয়। পরে স্থানীয়রা মুমুর্ষ অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।
খবর পেয়ে উজিরপুর মডেল থানা পুলিশ ওই রাতে যুবলীগ নেতার মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। গতকাল রোববার সকালে ময়না তদন্তের জন্য তার লাশ বরিশাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
নিহত যুবলীগ নেতার ভাই মোঃ বাচ্চু হাওলাদার দাবি করছেন, তার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করার পর, হত্যাকারীরা সড়ক দুর্ঘটনার একটি নাটক সাজিয়েছে।
উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ৯ জুন রাত সাড়ে ১০টার দিকে একই হাট সংলগ্ন এলাকায় সুমন গাঁজী নামে এক যুবককে কুপিয়ে দুই হাত কেটে ফেলা হয়েছিল। ওই ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে জসিম হাওলাদার, মাহাবুব গোমস্তা, কাওছার সিকদার ও নিহত টিটুসহ ৫ জনকে আটক করেছিল উজিরপুর মডেল থানা পুলিশ। গতকালের ঘটনায় আটককৃত যুবক জসিম হাওলাদার সেই মামলার প্রধান আসামী। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, পূর্বের ওই ঘটনার ধারাবাহিকতায় এ হত্যাকান্ড সংঘটিত হতে পারে।
উজিরপুর মডেল থানার ওসি মোঃ গোলাম সরোয়ার জানান, তাদের ধারনা মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায়ই যুবলীগ নেতা টিটু হাওলাদারের মৃত্যু হয়েছে। মোটরসাইকেলের অপর আরোহী জসিমকে আহত অবস্থায় উজিরপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।
লাশের সুরত হাল প্রস্তুতকারী উজিরপুর মডেল থানার এসআই আমির হোসেন জানান, নিহত যুবলীগ নেতার মাথায় শুধু একটি আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তবে ময়না তদন্ত রিপোর্ট ছাড়া এ মৃত্যু সম্পর্কে কোন কিছু নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

About the Author

-

%d bloggers like this: