Published On: Sun, Oct 15th, 2017

কমলগঞ্জের পাতানা মাদ্রাজীর মৃত্যু নিয়ে নানা গুঞ্জন

Share This
Tags

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি
সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১১ অক্টোবর রাতে মৌলভীবাজার কারাগারের কমলগঞ্জের আসামী পাতানা মাদ্রাজী (৩৬) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। চা শ্রমিক ও পরিবার সদস্যরা শারীরিক নির্যাতনে তার মৃত্যু হতে পারে বলে গুঞ্জন করছেন। নিহত মাদ্রাজী কমলগঞ্জ উপজেলার পাত্রখোলা চা বাগানের বাজার লাইন এলাকার চা শ্রমিক মিনু মাদ্রাজীর সন্তান।
মৌলভীবাজার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, কারা কর্তৃপক্ষ ও পাত্রখোলা চা বাগান সূত্র জানায়, মাস দুয়েক পূর্বে মাদক দ্রব্য নিয়ত্রণ অধিদপ্তর পাত্রখোলা চা বাগানে অভিযানকালে পাতানা মাদ্রাজীর বসতঘর থেকে কিছু দেশীয় মদ উদ্ধার করে। এসময় পাতানা মাদ্রাজী পালিয়ে যায়। পরে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর তার নামে কমলগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করলে মামলাটি আদালতে গেলে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী সমন জারি হয়।
পরে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ গত ৬ অক্টোবর পাতানাকে গ্রেফতার করে ৭ অক্টোবর আদালতে প্রেরণ করে। এ দিন সন্ধ্যা ৬.৫৫ মিনিটে তাকে মৌলভীবাজার কারাগারে প্রেরন করা হয়। ৯ অক্টোবর সোমবার পাতানা মাদ্রাজী অসুস্থ হলে তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১১ অক্টোবর রাত সাড়ে ৮টায় সে মারা যায়।
নিহতের ছোট ভাই হরি মাদ্রাজী বলেন, ৬ অক্টোবর কমলগঞ্জ থানার পুলিশ তার বড় ভাইকে সম্পূর্ণ সুস্থ অবস্থায় গ্রেফতার করে নেয়। এরপর তারা আর কোন খোঁজ পাননি। বৃহস্পতিবার তারা জানতে পেরেছেন অসুস্থ অবস্থায় পাতানা সিলেট হাসপাতালে মারা গেছেন। হরি মাদ্রাজী আরও জানায়, গ্রেফতারের পর পুলিশি হেফাজতে থাকাকালীন শারীরিকভাবে নির্যাতনের শিকার হতে পারে সে কারনেই হয়তো অসুস্থ হয়ে মারা যেতে পারেন। বৃহস্পতিবার রাত ৯ টায় লাশ বাড়িতে এনে সৎকার করা হয়েছে।
পাত্রখোলা চা বাগান পঞ্চায়েতের সভাপতি দেবাশীষ চক্রবর্তী ও সম্পাদক আমুল মিয়া বলেন, এই মৃত্যু নিয়ে স্থানীয়ভাবে অনেক গুঞ্জন শুরু হয়েছে। সাধারন চা শ্রমিকরা মনে করেন কোন না কোন নির্যাতনে পাতানা মাদ্রাজী গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। তবে মৌলভীবাজার কারাগারের একটি বিশেষ সূত্র জানায়, ৭ অক্টোবর সন্ধ্যায় তাকে কারাগারে গ্রহন করা হয়। ৯ অক্টোবর তার শরীর খারাপ হলে প্রথমে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে এবং পরে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পাতানা অতিরিক্ত মদ পান জনিত কারণে একাধিক রোগে ভোগছিল বলে চিকিৎসক জানান।
কমলগঞ্জ থানার ওসি মো: বদরুল হাসান জানান, ওয়ারিন্টভূক্ত আসামী থাকায় ৬ অক্টোবর পাতানা মাদ্রাজীকে গ্রেফতার করে ৭ অক্টোবর মৌলভীবাজারের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। তাকে সুস্থ অবস্থাতেই আদালতে প্রেরণ করা হয়। তবে জন্ডিস রোগে সে ভূগছিল বলে তিনি জানান।

About the Author

-

%d bloggers like this: