Published On: Mon, Sep 30th, 2019

আগৈলঝাড়ায় শেষ সময়ে জমে উঠেছে পূজার বাজার

Share This
Tags

আগৈলঝাড়া প্রতিনিধি ॥

 

আগামী বুধবার ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে সনাতন ধর্মবলম্বীদের পাঁচ দিন ব্যাপি শারদীয়া দূর্গোৎসব শুরু হবে। সর্ব বৃহৎ এই ধর্মীয় অনুষ্টানে আয়োজনের কমতি নেই কোথাও। পুজা মানেই নতুন জামা কাপড়, সীট কাপড়, কসমেটিক্স, জুতা, খেলনা ইত্যাদি। চাহিদানুযায়ি নতুন পোশাক, শাড়ী, কসমেটিক্স, জুতা ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে মার্কেটের দোকানগুলোতে চলছে শেষ সময়ের কেনাকাটা। শেষ সময়ে জমে উঠেছে শিশুদের খেলনার বাজারও।
উপজেলা সদর বন্দরসহ বিভিন্ন হাট-বাজারে শেষ সময়ের কেনা কাটায় নতুন শাড়ী, তৈরী পোশাক ও কসমেটিক্সের দোকানে কেনাকাটার জন্য ভীড় করছেন সকল বয়সী নারী পুরুষ ক্রেতারা।
আগৈলঝাড়া মুলতঃ কৃষি প্রধান এলাকা হওয়ায় অধিকাংশ মানুষের জীবন জীবিকা কৃষির উপর নির্ভরশীল। এবছর ধানের বাজার মূল্য উৎপাদনের চেয়ে প্রায় অর্ধেক হওয়ায় অর্থনৈতিক দিক দিয়ে ভাল নেই এলাকার অধিকাংশ মানুষ। তার পরেও শেষ মুহুর্তে সকলকে নিয়ে পূজার আনন্দ উপভোগ করাতে উৎসাহর একটুও কমতি নেই তাদের মধ্যে। যাদের পরিবারের সদস্যরা ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে রয়েছেন তাদের জন্য নতুন জামা কাপড় এলেও এ সুবিধা যাদের নেই তারা এখন শেষ মুহুর্তে আগৈলঝাড়া সদরসহ বিভিন্ন হাট-বাজারের দোকান ও ফুটপাত থেকে নিম্নবিত্ত লোকজন শেষ মুহুর্তের প্রয়োজনীয় কেনাকাটা করছেন। গভীর রাত পর্যন্ত দোকানপাটে কেনা বেচার ভীড় দেখা গেছে। ফুটপাতের দোকানগুলোতে লুঙ্গি, শাড়ি, জামা-কাপড়ের দাম কম হওয়ায় নিম্ন আয়ের মানুষ সেখান থেকেই চাহিদা অনুযায়ী পরিবারের সদস্যদের কেনাকাটা করছেন। তবে অনেক নিম্ন বিত্তকেই গোলার ধান বিক্রি করে পরিবারের জন্য জামা কাপড় কিনতে হচ্ছে। দোকানীরা জানান, পূজা উপলক্ষে অনেক আগেই তারা দোকানে প্রয়োজনীয় কাপড় চোপর সরবরাহ করলেও প্রথমে ক্রেতা কম হওয়ায় শেষ সময়ের বিক্রির জন্যই তাদের অপেক্ষা করতে হয়। দেশী পোশাকের পাশাপাশি এবার মেয়েদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে ভারতীয় সিরিয়ালের জামা-কাপড় শীর্ষে। বিক্রেতাদের কাপড় চোপর বিক্রি চলবে পূজা পরবর্তি এক সপ্তাহ পর্যন্ত বিশেষ করে লক্ষ্মী পূজা পর্যন্ত।

About the Author

-

%d bloggers like this: