বিশ্বে প্রতিবছর এক তৃতীয়াংশ খাদ্য নষ্ট হয়

Share This
Tags
বিশ্বে প্রতিবছর এক তৃতীয়াংশ খাদ্য নষ্ট হয়

সবুজবাংলা ডেস্ক:

বিশ্বে প্রতিবছর এক তৃতীয়াংশ খাদ্য নষ্ট হয় বিশ্বে প্রতিদিন যেখানে ৮৭ কোটি লোক ক্ষুধায় কষ্ট পাচ্ছে সেখানে প্রতিবছর উৎপাদিত খাদ্যের এক তৃতীয়াংশই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। বুধবার জাতিসংঘের অঙ্গ সংগঠন খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (ফাও) এ তথ্য জানিয়েছে।
বুধবার রোম থেকে প্রকাশিত এক রিপোর্টে ফাও জানায়, ‘প্রতিদিন যখন ৮৭ কোটি মানুষ অনাহারে থাকছে তখন কেবল সঠিক ব্যবস্থাপণা ও সংরক্ষণের অভাবে বিশ্বের উৎপাদিত খাদ্যের এক তৃতীয়াংশই নষ্ট হয়ে যায়।’ প্রতিবছর ১৩০ কোটি খাবার নষ্ট হয় যার আর্থিক মূল্য ৭৫ হাজার কোটি মার্কিন ডলার। তবে এসব খাদ্যের মধ্যে মাছ আর সামুদ্রিক খাবার যুক্ত করা হয়নি।
ফাও আরো জানায়, আগামী ৩৭ বছরেরও কম সময়ের মধ্যে বিশ্বের বর্তমান জনসংখ্যার সঙ্গে আরো ২ কোটি লোক যুক্ত হতে যাচ্ছে। ভবিষ্যতে এদের খাদ্য যোগান দিতে সমস্যায় পড়তে হবে। অথচ না খেয়ে প্রতিবছর উৎপন্ন খাদ্যের এক তৃতীয়াংশই নষ্ট করা হচ্ছে। আর এসব নষ্ট হয়ে যাওয়া খাদ্য উৎপাদন করতে গিয়ে প্রতি বছর বায়ুস্তরে জমা হচ্ছে ৩৩০ কোটি টন গ্রিণ হাউজ গ্যাস।
এদিকে নষ্ট হয়ে যাওয়া এসব খাদ্য পৃথিবীর ৩০ ভাগ শষ্যক্ষেত্র দখল করে রাখে বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়। এসব খাদ্য উৎপাদনে প্রচুর পরিমাণ পানি ও জমি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এতে জীব বৈচিত্রের ওপরও প্রভাব পড়ে।
ফাওয়ের মতে, এসব নষ্ট বা ধ্বংস হয়ে যাওয়া বিপুল পরিমাণ খাদ্য উৎপাদনে ১৪০ কোটি হেক্টর জমি ব্যবহৃত হয় যা বিশ্বের কৃষিজমির ২৮ শতাংশ।
সম্প্রতি পরিবেশ সংক্রান্ত একটি জরিপ চালানোর সময় নষ্ট হয়ে যাওয়া খাবারের ওপর এসব তথ্য উদঘাটিত হয় বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়।
জরিপে দেখা যায় এসব খাদ্য উৎপাদন করতে গিয়ে বিপুল পরিমাণ পানিরও অপচয় হয়ে থাকে।
ফাওয়ের মহাপরিচালক জোসে গ্রাজিয়ানো দা সিলভা বলেছে, ‘আমাদের খাবার নষ্ট রোধ করতে হলে কৃষক ও মৎস চাষী, স্থানীয় খাদ্য প্রস্তুতকারী কোম্পানি ও সুপারমার্কেট, স্থানীয় ও জাতীয় সরকার এবং ভোক্তাসহ মানব খাদ্য চক্রের সঙ্গে জড়িত প্রতিটি স্তরেই পরিবর্তন আনতে হবে।’
জরিপে দেখা যায়, বিশ্বের ৫৪ শতাংশ খাদ্যই উৎপাদণ, ফসল তোলা এবং সংরক্ষণের সময় নষ্ট হয়ে থাকে। বকি ৪৬ ভাগ নষ্ট হয় খাদ্য প্রক্রিয়াজাত, বিতরণ এবং ভোগ করার সময়।
উন্নয়নশীল দেশগুলোতেই কৃষিজ খাদ্য উৎপাদনের সময়ই বেশি নষ্ট হয়। আর এশিয়ার দেশগুলোতে এটি একটি উল্লেখযোগ্য সমস্যা। এসব দেশগুলোতে নষ্ট হয়ে যাওয়া খাদ্য উৎপাদনে প্রচুর পরিমাণ কৃষি জমি ও পানি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এখানে যে খাদ্যটি সবচেয় বেশি নষ্ট হয় সেটি হলো ধান। এরপর নষ্ট হয় ফল। এশিয়ায় ফল পচে যাওয়ার কারণে প্রচুর পরিমাণ পানিও নষ্ট হয়। আর এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি খাবার নষ্ট হয়ে থাকে চীনে। একইভাবে প্রতি বছর প্রচুর পরিমাণ শাকসব্জি নষ্ট হচ্ছে এশিয়া, ইউরোপ, দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার শিল্পোন্নত দেশগুলোতে।
সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের একটি সংসদীয় প্যনেলও একই ধরণের তথ্য দিয়েছে। তারা জানায় প্রতিবছর বিশ্বে ৩০ থেকে ৫০ শতাংশ খাদ্য নষ্ট হয়।

About the Author

-

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

%d bloggers like this: