Published On: Wed, Jun 26th, 2019

কমলগঞ্জে মহিলার সংবাদ সম্মেলন

Share This
Tags

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি
ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও আদালতে মামলা করায় প্রতিপক্ষের লোকজন হুমকি দিচ্ছে দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ঈদগাও টিলার জাহিদ মিয়ার স্ত্রী ফাতেমা বেগম। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় কমলগঞ্জ সাংবাদিক সমিতির শমশেরনগরস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়। তবে অভিযুক্ত মাওলানা তাজ উদ্দিন বিষয়টি সম্পর্ণূ অস্বীকার করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ফতেমা বেগম জানান, আমার স্বামী প্যারালাইসিস রোগী ঈদগাহ টিলাস্থ নিজ বাড়িতে বসবাস করছি। মেয়েকে বাড়িতে এসে কোরআন শরীফ পড়ানোর জন্য ইদগাহ টিলা মসজিদ ইমাম মৌলানা তাজ উদ্দিন (৩০) কে রাখা হয়। এভাবে মেয়েকে কোরআন শরীফ পড়ানোর সুবাদে মৌলানা সুযোগ নিয়ে আমার সাথে কথা বলার চেষ্টা ও কুদৃষ্টি দিতে থাকে। এক পর্যায়ে ১৪ জুন মেয়েকে কোরআন শরীফ পড়ানোর সময় তাজ উদ্দিন সুযোগ বুঝে আমাকে কুপ্রস্তাব দেয়ার সুযোগ খুঁজলে আমি তাকে ঘর থেকে চলে যেতে বলি।

পরদিন ১৫ জুন সকাল ১১টায় ইমাম তাজ উদ্দীন এসে আবারও মেয়েকে পড়াতে বসিয়ে আমার সাথে কথাবার্তা বলতে থাকে। এ সময়ে ইমামের ভাবভঙ্গি দেখে আমি অন্য রোমে চলে গেলে সেখানে গিয়েও অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল করে শ্লীলতাহানি ঘটায়। এসব ঘটনা গ্রামের মুরব্বীসহ অন্য আরও দু’একজনের কাছে বিচারপ্রার্থী হই। বিচার প্রার্থী হওয়ায় শোভা মিয়া (৩৮), জমসেদ মিয়া (৪০), নিজাম আলী (৩৪),মিটু মিয়া (২৬), রাসেল মিয়া (২৭) সহ একদল লোক ১৫ জুন শনিবার রাত ১০ টায় একযোগে আমার বসতগৃহের ভেতরে প্রবেশ করেন।

ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে শোভা মিয়াসহ তারা আমাকে ঝাপটে ধরে কিল, ঘুষি মারে এবং লাঠি দিয়ে আঘাত করে জখম করে। স্বামী এগিয়ে আসলে তাকেও আঘাত করে। এ বিষয়ে মামলা না করতেও তারা হুমকি দেয়। এজন্য গত ১৮ জুন মৌলভীবাজার আদালতে পৃথক দুটি মামলা করা হয়েছে। মামলা নং (১৯৮/২০১৯) ও (১৭৯/২০১৯) মামলা দায়ের করি। পরে নানাভাবে হুমকির কারনে ১৯ জুন কমলগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরী করি। ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত, ন্যায় বিচারের জন্য প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানান।

অভিযোগ বিষয়ে তাজ উদ্দীন বলেন, ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমি এ মহিলাকে চিনি না। এমন কি তার ঘরেও প্রাইভেট পড়াতেও যইনি। রমজান মাসের এত্তেকাফের সূত্র ধরে মহিলার স্বামীর সাথে বিরোধ দেখা দেয়। এরপর রাস্তায় মহিলা আমাকে দাড় করিয়ে বিভিন্ন ভাষায় গালিাগালাজ করে। মসজিদ কমিটির সভাপতি জমসেদ আলী বলেন, মহিলা আমার ছোট ভাইয়ের বউ সে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। ইমাম সাহেব নতুন আসছেন তিনি কি করে এ মহিলাকে চিনবেন। এ মহিলা যা করছে সম্পূর্ণ মিথ্যা। মহিলার স্বামী কারো কথা না শুনে মিথ্যা অজুহাত তৈরী করছেন।

About the Author

-

%d bloggers like this: