Published On: Wed, Jun 26th, 2019

শমশেরনগরে মালবাহী ট্রেন আটক জনদুর্ভোগ

Share This
Tags

 


কমলগঞ্জ প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের শমশেরনগর রেলওয়ে স্টেশনের ২ নম্বর লাইনে ২৫টি তেলের ট্রাঙ্কারবাহী একটি ট্রেন প্রায় ২৪ ঘন্টা আটকা পড়ে। এ মালবাহী ট্রেনটি শমশেরনগর স্টেশনে আটকা থাকায় শমশেরনগর-মৌলভীবাজার প্রধান সড়ক মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে কোন প্রকার যানববাহন চলাচল করতে পারছে না। ফলে জনদুর্ভোগে ছাত্র ছাত্রীসহ জনসাধারন। বুধবার বেলা আড়াইটায় শমশেরনগর স্টেশন এলাকা ঘুরে এ চিত্র দেখায়।

শমশেরনগর স্টেশন প্লাটফরম সংলগ্ন এলাকা দিয়ে শমশেরনগর-মৌলভীবাজার যাতায়াতের প্রধান সড়ক। এ ট্রেনটি দাড়িয়ে থাকায় শমশেরনগর এ এ টি এম বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়, আব্দুল মছব্বির একাডেমী, সুজা মেমোরিয়াল কলেজ, আইডিয়াল কেজি স্কুল, শমশেরনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও বিএএফ শাহীন কলেজ শমশেরনগরের ছাত্র ছাত্রীরা পড়ছেন চরম বিপাকে। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী ঝুঁকি নিয়ে দুটি ট্যাঙ্কারের মাঝ নিয়ে পারাপার হতে দেখা যায়। সড়ক অবরোধ করে তেলের ট্যাঙ্কারবাহী ট্রেনটি ২ নম্বর লাইনে থাকায় বাধ্য হয়ে যানবাহনগুলিকে দেড় কিলোমিটার পথ ঘুরে বিকল্প পথে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

শমশেরনগর এ এ টি এম বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিহির ধর চৌধুরী বলেন, এ অবস্থায় যানবাহনগুলি ঘুরে বিকল্প পথে গেলেও শিক্ষার্থীরা বাধ্য হয়ে ঝুঁকি নিয়ে দুটি ট্যাঙ্কারের মাঝ দিয়ে পারপার হচ্ছে। আইডিয়াল কিন্ডার গার্টেন স্কুলের শিক্ষিকা তানিয়া আক্তার বলেন, তার বাসা রেলওয়ে স্টেশনের পশ্চিম প্রান্থে। সে বাধ্য হয়ে তেলের ট্যাঙ্কারের মাঝ দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে পার হয়ে স্কুলে আসছে। স্কুল শেষে আবারও এভাবে সে বাসায় ফিরতে হবে।

শমশেরনগর রেলওয়ে স্টেশনের মাস্টার কবির আহমদ বলেন, তেলের ট্যাঙ্কারবাহী ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হয়ে গেছে। ফলে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকে এ ট্রেনটি একানে পড়ে আছে। কুলাউড়া স্টেশন থেকে বিকল্প একটি ইঞ্জিন আসার পর গতকাল বুধকার রাত ১০টায় এ তেলের ট্যাঙ্কারবাহী ট্রেন শমশেরনগর স্টেশন ত্যাগ করবে।

About the Author

-

%d bloggers like this: