স্বাক্ষ্য

Share This
Tags


শিকদার রেজাউল করিম

ঐশী সংযোগ রক্ষায় পৃথিবীতে দু লক্ষ চব্বিশ হাজার নবী এসেছেন। তত্ত¡সূত্র মতে আদি পুরুষের আগমন হয়েছিল প্রায় চৌদ্দ কোটি বছর আগে। বিধাতা মানুষ সৃষ্টি করেছেন তিনি মানুষের জন্য আনি কানুন বা নীতিমালাও তৈরি করেছেন। নবীদের মাধ্যমে এসব আইন কানুন পৃথিবীতে জারি হয়েছে। আইন কানুনের এ পুস্তকই কিতাব বা ধর্মগ্রন্থ কিন্তু নবী আর পৃথিবীতে আসবেন না। তবে নায়েবে নবীদের মাধ্যমে ইনজিনিটি বা বুদ্ধি কৌশল পৃথিবীতে প্রচার থাকবে। এ প্রচারের মাধ্যম হলেন প্রাজ্ঞ অলি আল্লাহ । অলি আল্লাহ প্রত্যেক অলি আল্লাহর থাকে তাওয়াজ্জাহিল গায়েব বা আধ্যাত্মিক প্রযুক্তি। এ প্রযুক্তি দিয়ে শুধু মোসলমানদের মধ্যেই থাকে তা কিন্তু নয়। বাস্তবে প্রামাণিক ভাবে কোটালিপাড়া নিবাসী গণেশ পাগলের এমন ইনজিনিটি ছিলো। বাবুগঞ্জ উপজেলার ইসলামপুর গ্রামের আয়নাল ফকিরের এমন ইনজিনিটি ছিলো। যা চাক্ষুস প্রত্যক্ষণ করেছি। যাহোক, যাকে কেন্দ্র করে এসব কথা লিখিত তিনি হলেন ঝালকাঠির নেছারাবাদ নিবাসী হযরত আল কায়েদ সাহেব। দুই হাজার তিন সালে হুÐা এক্্িরডেন্ট করে আমার হাত ভেঙ্গে ছিলো। আশোকাঠি হাসপাতালে আমাকে আনা হয়েছিলো। এক্্র-রে করে তা দেখে ডাক্তার বললেন, তিন স্থানে ফেকচার হয়েছে। ডাক্তার বরিশাল পাঠিয়ে দিলেন। সাগরদির ডাক্তার ও একরই কথা বললেন। শুক্কুরবার বন্ধ থাকায় শনিবার আমার অপারেশন হয়। সহসা এক হাজি বললেন ভাই আপনি ওযু করে ঝালকাঠি নেছারাবাদ কায়েদ সাহেব হুজুরের দশফাÐে একটি মানত করুন আল্লাহর রহমতে আপনার কিছু লাগবেনা। আমি তাই করলাম । এরপরও আমাকে অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হল। ডাঃ আবুল হোসেন হাত উছিয়ে তিনি পরিক্ষা করে বললেন, আপনার অপারেশন লাগবেনা। কোনো ফেকচার বা ভাঙ্গা দেখছিনা। এরপরও তিনি আনুমানিক একটা বেÐিজ করে দিলেন। বাড়ি আসার পর অনেকেই ভয় দেখালো তথ্যপ্রযুক্তির যুগে এমন অন্ধ বিশ্বাসে তোমার হাতটাই কেটে ফেলতে হবে। আত্মীয়রা আমাকে পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে গেল। সেখানে আসল কয়েকজন দালাল। কেউ বলে প্রাইভেট চিকিৎসায় খুব ভালো ডাক্তার আছে কেউ বলে পঙ্গুর ডাক্তার আমার অমুক। তাদের কথা শুনে আমি চিন্তা করলাম দোয়া বদদোয়া, তন্ত্র, মন্ত্র , মানত করা সবইতো শব্দ শক্তি। শব্দ শক্তির এ্যাকশন না থাকলে কাকেও গালি দিলে সে রেগে যাবে কেন? তাই আল্লাহর উপর বিশ্বাস রেখে কায়েদ সাহেব হুজুরের দশফাÐে মানতির কথা চিন্তা করলাম। বাড়ি ফিরে এসে বাংলা দা দিয়ে নিজেই ব্যাÐেজ কেটে ফেললাম এবং কায়েদ সাহেব হুজুরের সাথে দেখা করে আসলাম। তার দোয়া নিয়ে আসলাম।

About the Author

-

%d bloggers like this: