Published On: Mon, Sep 25th, 2017

মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে হয়রানীর অভিযোগ

Share This
Tags

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নে জমির মালিকানা দাবী করে দখলের চেষ্টা করায় থানায় অভিযোগ করায় প্রতিপক্ষ মিথ্যা মামলা দিয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে হয়রানী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয়ভাবে সালিশ বৈঠকে সিদ্ধান্তকে অমান্য করে ফের জোরপূর্বক জামিগুলোর মালিকানা দাবী করছেন। এতে মালিকানা না দেয়ায় প্রতিপক্ষকে নানান ভাবে হামলা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন বলে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী মোছাঃ খাতুনা বেগম জানান। ২৫ সেপ্টেম্বর সোমবার সকালে সরজমিন বিলেরপার গ্রামে গেলে এসব তথ্য জানা যায়। তবে অভিযোক্ত আছকর মিয়ার দাবি তার ভূমি থেকে ১ লাখ টাকার গাছ কেটে নিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা পরিবার।

অভিযোগকারী মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী খাতুনা বেগম  ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হাজীপুর ইউনিয়নের বিলেরপার গ্রামের মৃত সিকন্দর আলীর ছেলে সনদ প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা মৃত আমির আলী দীর্ঘদিন যাবত সরকারী খাস ভূমি দখল করে বসবাস করছেন পরিবারের সকলকে নিয়ে। ২০০৬ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর মুক্তিযোদ্দা আমির আলী অরপে ইয়ামিছ মৃত হয়। তখন রেখে গেছেন দই স্ত্রীর দুই সংসার। এর পর থেকে মুক্তিযোদ্ধার দুই সংসারের মধ্যে একটি পরিবার দখরকৃত বাড়ীতে বসবাস করে আসছেন। অপর পরিবার মুক্তিযোদ্ধা আমির আলীর বাবার জমিতে মালিকা ভাগের ভূমিতে বসবাস করছেন আরও একটি পরিবার।

মরহুম মুক্তিযোদ্ধা আমির আলীর ছেলে বাহরাইন প্রবাসী  রমজান আলী এ ব্যাপারে জানান, তার চাচা শাদাদ হোসেন ও আছকর আলীরা দাদায়িতি ভূমির শোল আনা ভাগ করে নিয়েছেন। এরপরও দখলকৃত ভূমি দাবি করে জুরর্পূবক গাছ গাছালি কেটে বিনিষ্ট করছেন চাচা আছকর আলী। তিনি আরও বলেন, এঘটনায় স্থানীয় ভাবে বিচার বৈঠক হলেও হাজির না হয়ে উল্টো আমাদের উপর মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছেন।

এ ব্যাপারে এলাকার জনপ্রতিনিধি ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের ডাকে আছকর আলী ও শাদাদ হোসেন শাড়া না দিয়ে বেচে নেন বিকল্প রাস্তা। করেন মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের উপর হয়রানী মূলক গাছ কাটার মিথ্যা মামলা। যা আদও গাছ কাঠেনি মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের দাবি।

২৩ আগষ্ট আছকর মিয়াসহ গংরা মুক্তিযোদ্ধার দখলকৃত জমিতে ঘর বানাতে গেলে বাধা দিয়ে হামলা চালান আছকর মিয়াসহগংরা। স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ গন্যমান্যরা উপস্থিত হয়ে মিমাংশার কথা বললে পরিস্থিতি সান্ত হয়। এনিয়ে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী খাতুনা বেগম বাদি হয়ে কুলাউড়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এর পর ৭ সেপ্টেম্বর সকাল থেকে আছকর মিয়ার জমি থেকে ১ লাখ টাকার গাছ কেটে নিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা পরিবার। এর প্রেক্ষিতে অভিযোক্ত আছকর মিয়া বাদি হয়ে মৌলভীবাজার সিনিয়রজুডিসিয়াল ম্যাজিষ্টেট ৫নং আমল আদালতে একটি পিটিশন মামলা নং ৩৪৬/২০১৭ ইং করছেন। যা এ মামলা মিথ্যা বলে অভিযোগ করেন মুক্তিযোদ্ধা পরিবার।

এব্যাপারে মামলার বাদি আছকর আলী মোবাইল ফোনে জানান, আমার নিজের জমি থেকে ১ লাখ টাকার গাছ কেটে নিয়েছেন। তারা আমার মুক্তিযোদ্ধা ভাইয়ের পরিবার। তিনি আরও বলেন, খাস জমিসহ সকল জমি আমার বাবার দখলকৃত। কাগজের ও খাস জমির আমাদের তিন ভাইয়ের নামে ফরসায় রয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

হাজীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্ছু জানান, আমার জানামতে মরহুম মুক্তিযোদ্ধা আমির আলী ও তার স্ত্রী পুত্র পরিবারদেরকে নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবত বসবাস করে আসছেন। তিনি আরও বলেন, অপর পক্ষ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছেন।

কুলাউড়া থানার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক শাব্বির আহমদ ঘটনা ও মামলার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর সামাজিক মিমাংসার জন্য থানায় উভয় পক্ষকে ডাকা হয়েছে। তদন্তক্রমে বিষয়টি দেখা হবে।

About the Author

-

%d bloggers like this: